পূজায় স্বল্প খরচে পাহাড়ের আনন্দ উপভোগ করতে চলুন মিরিকে

newsbazar 24 : শারদ উৎসব আগত প্রায়। ভ্রমণ পিপাসু বাঙালি দূর্গা পূজার ছুটিতে কোথাও না কোথাও বেরিয়ে আসার পরিকল্পনা করেন। যারা স্বল্প খরচে পাহাড়ের সৌন্দর্য উপভোগ করতে চান অল্প কয়েকদিনের জন্য মিরিক ঘুরে আসতে পারেন।

রাজ্যের অন্যতম  পার্বত্য শহর মিরিকের সৌন্দর্য্য অতুলনীয়। পাহাড়ের গায়ে চা বাগান, সবুজের সমারোহ  এবং মেঘের স্পর্শ এই স্থানকে আকর্ষণীয় করে তুলেছে।রাজ্য প্রশাসন মিরিককে পর্যটকমূখী করে তোলার জন্য বেশ কিছু ব‍্যাবস্হা গ্রহণ করায় ক্রমে ভিড় বাড়ছে এখানে।

সমুদ্রতল থেকে প্রায় ১৭৬৭ মিটার উচ্চতায় অবস্থিত মিরিক।শিলিগুড়ি থেকে  মিরিকের দূরত্ব ৫২ কিলোমিটার, দার্জিলিংয়ের থেকে ৪৯ কিলোমিটার।

কিভাবে যাবেন:

কলকাতা থেকে ট্রেনে বা  বাসে করে যেতে হবে শিলিগুড়ি। বিমানে গেলে  বাগডোগরায় নামতে হবে । শিলিগুড়ি থেকে ৫২ এবং বাগডোগরা থেকে ৫৫ কিলোমিটার দূরত্বে মিরিকে পৌঁছাতে হবে সড়ক পথে। বাস কিংবা প্রাইভেট গাড়ি  ভাড়া করে।

আসুন এক নজরে দেখে নেওয়া যাক দর্শনীয় স্থানগুলো:-

মিরিক শহর থেকে আট কিলোমিটার দূরত্বে অবস্থিত  টিংলিং ভিউ পয়েন্ট  থেকে দার্জিলিং এর সবকটি চা বাগানে  একসাথে দেখা যাবে।

এরপর দেওসি ডারা :  এই স্থান থেকে মিরিক শহর এবং তার আশেপাশের পাহাড়ের শোভা উপভোগ করা যায় ।

মিরিক লেক : মিরিক শহরের অন্যতম আকর্ষণ এই লেকের দৈর্ঘ্য প্রায় ১.২৫ কিলোমিটার। ওক, মাপলে গাছ দিয়ে ঘেরা এই জলাশয়ে বোটিং করতে আসেন বহু পর্যটক। লেকের অদূরে ঘোড়সওয়ারির ব্যবস্থা রয়েছে।

রামিতে ডারা : এটি একটি পাহাড়। যার সর্বোচ্চ স্থান থেকে বরফে ঢাকা কাঞ্চনজঙ্ঘার অপরূপ সৌন্দর্য্য উপভোগ করা যায়।

মিরিক চা বাগান : মিরিক লেক থেকে দুই কিলোমিটার দূরে অবস্থিত এই স্থানে আছে  দার্জিলিং জেলার অন্যতম সেরা কিছু চা বাগান যেখানে পর্যটকদের প্রবেশে কোনো বাধা নেই ।

পর্যটকদের থাকার  জন্য এই স্থানে বেশ কয়েকটি হোটেল, রেস্তোরাঁ এবং হোম স্টে রয়েছে।

(ছবিটি মিরিকের টিংলিং ভিউ পয়েন্টের )