সন্দীপ চক্রবর্তীর অনবদ্য একটি লেখা ” কান্না ”

“কান্না”

সারাটা রাত গাছটা কেঁদেছে ফুঁপিয়ে ফুঁপিয়ে।

সেই কান্না শুনেছে রাতজাগা চাঁদ, বিষন্ন পৃথিবী,
ঘুম হারানো দিনের সূর্য ।

আতঙ্কে ছটফট করেছে ডালে বাসা বাঁধা এক হাজার পাখির দল, কোটরে শুয়ে থাকা কিছু কাঠবিড়ালি, গাছকে জড়িয়ে থাকা অসংখ্য পতঙ্গ।

ওরা দেখেছিল গাছটা কেঁপে কেঁপে উঠেছিল অসহ্য যণ্ত্রণায়,

যখন দানবীয় উল্লাসে মানুষের দল গাছের শরীরে লোহার পেড়েকে গেঁথে দিয়েছিল আমন্ত্রণ পত্র
“বনবিবি রিসোর্ট উদ্বোধন।”

খবর ছড়িয়ে পড়ে শিকড়ে শিকড়ে,
গাছের দল জানতে পেরেছে, মানুষের হাতে, ওদের অনেকের আসন্ন মৃত্যুর হিংস্র পরোয়ানা।

অসংখ্য পতঙ্গ, পাখি, কাঠবিড়ালির আশ্রয়
হারানোর দীর্ঘশ্বাস ঘিরছে আজকাল মানুষকে রোজ।

বর্ষায় বৃষ্টি নেই, শরতে অসহ্য গরম, শীত ক্ষণিকের, গ্রীষ্মে তীব্র দহন।

এগিয়ে আসছে পৃথিবী ধ্বংস হওয়ার দিন।

@ সন্দীপ চক্রবর্তী